ভালবাসা কারে কয়?? ভালবাসা কি আদৌ হয়???

মুনিয়া গুডগার্ল
ভালবাসা কারে কয়?? ভালবাসা কি আদৌ হয়???
১৭ ই মার্চ, ২০০৮ ভোর ৬:৩৯

এত লম্বা ছুটির পর জমা। তারপরও কেমন হ-য-ব-র-ল। সবাই কেমন যেন হয়ে গেছে- কেউ উদাস, কেউ দেবদাস।
কারো ডিজাইনেই স্যাটিসফায়েড না টিচাররা।
শেষ মুহূর্তের টাচ লাগাচ্ছি শিটে। হঠাৎ একটা ফ্রেন্ড এর দিকে চোখ পড়ল। ফোন কানে নিয়ে আমার দিকে তাকিয়ে আছে হতবুদ্ধির মত।
আমি তাকাতেই কিছু না বলে ফোনটা দিয়ে দিল হাতে। ওপাশ থেকে কান্নার শব্দ। দুই তিনবার হ্যালো বলার পর কথা বলল মেয়েটা- ইলোরা।
ঘটনার সারাংশ- ওকে রাস্তায় আটকে ওর জমার শিট নিয়ে গেছে ওর এক্স বয়ফ্রেন্ড। শিট ছিঁড়ে ফেলেছে।
আমি কি বলব বুঝতে পারছিলাম না। বললাম ক্যাড প্রিন্ট জমা দিতে। কিন্তু মেইন শিটে অনেক চেইঞ্জ ছিলো। ক্যাড প্রিন্ট দিলে হবে না। আর ছেলে পথেই দাঁড়িয়ে আছে। আবার আটকায় যদি? জমার সময় হয়েই গেছিল। ওর জন্য কিছুই করতে পারলাম না। মনটা ভীষণ খারাপ হয়ে গেল
– টানা তিনদিন ড্রাফটিং করা শিট। ওর মধ্যে সারা মাসের পরিশ্রম- এইটা কেউ টাচ করলেই তো বুকের মধ্যে গিয়ে লাগে। আর সেটা নিয়ে ছিঁড়ে ফেলেছে কেউ। ওর যে কেমন লেগেছে সেটা চিন্তা করতে পারলাম না।
জমার পরে অনেকক্ষণ ব্যাপারটা নিয়ে ভাবলাম।
এই ছেলেটা আগে ওর জমার সময় এসে দাঁড়িয়ে থাকত, জমার পর ওকে নিয়ে ঘুরতে যাওয়ার জন্য। কত হেল্প করত কাজে…
কেন করত সেটা ভাবলাম আরেকবার- ব্যাপার খুবই স্পষ্ট। বোকাসোকা সুন্দরীকে ক্যাপচার করতে কার খারাপ লাগবে?
আগে বোঝানোর চেষ্টা করেছিলাম কত- গাধাটা বুঝলো না। ভাবত কত যে ভালোবাসে ওকে…এমনকি আমি ছেলেটাকে উপযুক্ত পাত্তা(!) না দেওয়াতে মাইন্ড করেছিল সে!

ওদিকে নিজেরই দুইটা ফ্রেন্ডের মধ্যে একটা বিশ্রি ঘটনা ঘটে গেল চোখের সামনে।
ছেলেটা আমার অনেক ক্লোজ ফ্রেন্ড।
ওর একটা স্যাড স্টোরি আছে। বাজি ধরে ওর সাথে প্রেম করেছিল একটা মেয়ে। আর তাকেই জানপ্রাণ ভালবেসেছিল গাধাটা। বাজি জিতে যাওয়ার পর ওকে যথেষ্ট ভুগিয়ে মেয়েটা চলে যায়।
তারপর থেকে ওর মানসিকতা অদ্ভুত হয়ে গেছে। ভালবাসা সংক্রান্ত নানা থিওরী দেয়। আর বলে জীবনে প্রেম একবারই হয়। ওরটা হয়ে গেছে। আর হবে না- এই জাতীয় হাবিজাবি। তবু ছেলেটা খারাপ ছিল না।
কিছুদিন আগে হঠাৎ এসে বলে ও নাকি গিল্টি ফিল করছে একটা ব্যাপারে। আমি খেয়াল করছিলাম যে আমারই আরেকটা ফ্রেন্ড ওর প্রতি একটু উইক। কিন্তু ও যা বলল, শুনে ভাল না খারাপ ঠিক কী লাগল বুঝলাম না। ও মেয়েটার ক্লোজ হয়েছে মোটামুটি। ইন্টারেস্ট দেখিয়েছে। মেয়েটা খু্বই সরল। সুতরাং, প্রেমে পড়ে গেছে- এসব ক্ষেত্রে যা হয় আর কি।
ও যখন বুঝলো যে মেয়ে প্রেমে পড়েছে- তখন সরে এলো। ও নাকি রিলেশানশিপ এ যেতে ভয় পাচ্ছে। ঘটনাটায় মেয়েটা ভীষণ ভেঙে পড়ে। দারুণ একটা ফ্রেন্ডশিপ ছিলো ওদের- নষ্ট হল। মেয়েটা ওকে ঘৃণা করে এখন।
ফ্রেন্ডদের মধ্যেও জানাজানি হয়ে গেছে ব্যাপারটা। সবার কাছে ছেলেটা দোষী। নিজের কাছেও। মেয়েটাকে সরি বলতে চাইছে। কিন্তু ওটা বলার মুখও নেই।
আসলে ও অতি সতর্ক হয়ে গেছে। এমন মেয়ে চায় যে ওর ফ্যামিলিতে এলিজিবল। আমি বলেছিলাম যে এজন্য ঘটক দিয়ে মেয়ে খোঁজ। এইভাবে প্রেম করা যায় না। কিন্তু ও শুরু করেছে এই কাজ। একটু ক্লোজ হয়ে বাজিয়ে দেখে। মেয়ে যখন সব ডিসক্লোজ করে দেয়, পছন্দ না হলে গুডবাই।
এইভাবে কি ভালবাসা হয়? ভালবাসা আসলে কী? আদৌ কি ওটা আছে, না মরীচিকা শুধু?
কারো কারো কাজে ফ্রয়েডের সুরের প্রতিধ্বনিই শুনি। কারো কাছে এটা একটা গেইম- এন্টারটেইনমেন্ট। কারো কাছে হয়ে গেছে বিজনেস।
আমারই একটা ক্লাসমেইট প্রতিদিন হিসাব করে- গার্লফ্রেন্ডের কাছ থেকে কী পাচ্ছে সে। ওর কথায়- খালি ভালবাসলেই হবে না, দেখতে হবে ও কী দিচ্ছে আমাকে!- So Smart!
এইসব দেখে খুব হতাশ লাগে। কিন্তু আমি যে সত্যিকার ভালবাসাও দেখেছি। আমি যে চেখে দেখেছি ভালবাসা কেমন হয়; তবে কেন চারপাশে এমন দেখি। একদিন ভীরুতার জন্য ধিক্কার দিয়েছিলাম ভালবাসার মানুষটাকে। আজ কেন যেন তার কাছে ক্ষমা চাইতে ইচ্ছা করছে- আবার ক্ষোভও জমছে অবিরাম বৈশাখী মেঘের মত।
ও কেন আমাকে ভালবাসল। নাইবা জানতাম।
বিজনেস করতাম এটা নিয়ে। অথবা গেইম খেলে ফ্রয়েডকে ডেকে জাস্টিফাই করতাম। নাইবা জানতাম ভালবাসা কারে কয়? জানার কি খুব দরকার ছিল?

১৫ টি মন্তব্য
১২১বার পঠিত
আপনি একবার রেটিং দিয়েছেন
পোস্টটি ১২ জনের ভাল লেগেছে, ২ জনের ভাল লাগেনি
১৭ ই মার্চ, ২০০৮ সকাল ৭:৩৬
মানবী বলেছেন: সেকি কেবলই চোখের জল,
সেকি কেবলই দুঃখের শ্বাস
ওকে তবে করে, কি সুখেরই তরে
এমন দুঃখের আশ!

“জানার কি খুব দরকার ছিল?”- যথা সময়ে জানা জরুরী, ভুল সময়ে না জানা ভালো মনে হয়।

ভাবনার প্রকাশ ভালো লেগেছে, ধন্যবাদ।

+
১৭ ই মার্চ, ২০০৮ সকাল ৮:০৮
শফিউল আলম ইমন বলেছেন: হুমম…….লেখা ভালো হয়েছে। পেলাচ দিছি।
তবে প্রেম সংক্রান্ত প্যাচাঁল ভাল্লাগে না।
১৭ ই মার্চ, ২০০৮ সকাল ৮:২২
শান্তা২৯ বলেছেন: সে যে কেবলি যাতনাময় . . .
১৭ ই মার্চ, ২০০৮ সকাল ৮:২৫
ধুসর গোধূলি বলেছেন:

ভালোবাসা নিয়ে কেউ গবেষনা করতে চাইলে থিসিসে এই পোস্ট যুক্ত করতে পারবে নিঃসন্দেহে।

১৭ ই মার্চ, ২০০৮ সকাল ৮:২৭
শেষ বিকেলের মেয়ে বলেছেন: হুমম.. ভালো লাগলো
১৭ ই মার্চ, ২০০৮ সকাল ৮:৩১
কালপুরুষ বলেছেন: মুনিয়া, খোঁজ নিবা ঢাকা শহরের কই কই ভালবাসার কোচিং সেন্টার আছে। ক্লাশে পড়ানোর লাইগা আমি একটা গাইড বুক লেখুম, মার্কেটিং ভাল হইলে কমিশন পাইবা।
১৭ ই মার্চ, ২০০৮ সকাল ৮:৪১
সুলতানা শিরীন সাজি বলেছেন: কি খবর মুনিয়া?
ভালোবাসা ভাবাচ্ছে?
ভালোবাসা হলো দারুন অনুভব।
ভালো থেকো।অনেক শুভেচ্ছা।
১৭ ই মার্চ, ২০০৮ সকাল ৮:৪৪
উম্মু আবদুল্লাহ বলেছেন: ভালবাসা নিয়ে গবেষনা বুঝি?

“সে কি কেবলই দুখেরও রাশ
লোকে তবে করে কি সুখের লাগি এমন দুখেরও আশ।”

আমারও প্রশ্ন।
১৭ ই মার্চ, ২০০৮ সকাল ৯:০৬
অন্ধকার বলেছেন: মরীচিকা…!
১৭ ই মার্চ, ২০০৮ সকাল ৯:১৯
ফারজানা মাহবুবা বলেছেন: এসব ঘটনা ভালো লাগেনা, মুনিয়াপুনি। প্রেম ভালবাসা এসব শব্দ শুনলেই আমার কেবল নিজের নানা-নানীর কথা মনে হয়……… বুড়া থুড়থুড়ে হয়ে যাওয়ার পরো যে নানীকে নানার কথা বললে, যে দাদীকে দাদার কথা বললে থুবড়ে যাওয়া কুঁচকে যাওয়া গালে আলাদা লাবন্য চলে আসে! ওরা কোথা থেকে যে এত ভালবাসা পায়!
১৭ ই মার্চ, ২০০৮ সকাল ৯:২৯
স্করপিয়ন্স বলেছেন:
মাইনাস
১৭ ই মার্চ, ২০০৮ সকাল ৯:৪১
আইরিন সুলতানা বলেছেন: “তোমরা যে বল দিবস রজণী ভালবাসা ভালবাসা
সখী ভালবাসা কারে কয় ?
……..”

ভালবাসার ডেফিনেশনটা কন্সট্যান্ট না । যে যার চিন্তা থেকে ভালবাসার সংজ্ঞা, বৈশিষ্ট দাঁড় করায়..কারো ভালবাসায় উদ্দামতা আছে, কেউ বড় বেশী হিসেব কষে..তাতে কেউ সুখী হয়, কেউ আশাহত….আরেকটা গানের লাইন মনে পড়ল –

“তুমি যাকে প্রেম বল, আমি তাকে প্রেম বলি না….
তুমি যেই পথে চল, আমি সেই পথ চিনি না…”
১৭ ই মার্চ, ২০০৮ সকাল ৯:৫৩
গান্ডীব বলেছেন: মাইনাচ দিলাম, কারন কাল্লুরে ব্লক করা হয় নাই, সরবে লাইদা গেছে লুক্টা
১৭ ই মার্চ, ২০০৮ দুপুর ১:০৬
আড্ডাবাজ আশিক বলেছেন: হায় ভালোবাসা………………………
ও ভালোবাসা………………………
ভালোবাসা…?
১৭ ই মার্চ, ২০০৮ দুপুর ২:২৮
কুচ্ছিত হাঁসের ছানা বলেছেন: উদ্ধৃতিঃ

“ওর একটা স্যাড স্টোরি আছে। বাজি ধরে ওর সাথে প্রেম করেছিল একটা মেয়ে। আর তাকেই জানপ্রাণ ভালবেসেছিল গাধাটা। বাজি জিতে যাওয়ার পর ওকে যথেষ্ট ভুগিয়ে মেয়েটা চলে যায়।
তারপর থেকে ওর মানসিকতা অদ্ভুত হয়ে গেছে। ভালবাসা সংক্রান্ত নানা থিওরী দেয়। আর বলে জীবনে প্রেম একবারই হয়। ওরটা হয়ে গেছে। আর হবে না- এই জাতীয় হাবিজাবি।”

ভাইরে এইটাতো এক্কেবারে আমার জীবন কাহিনী।

আর “জীবনে প্রেম একবারই হয়। ওরটা হয়ে গেছে। আর হবে না” এই কথাটা হাবিজাবি না ভাই। জীবন দিয়ে উপলদ্ধি করা সত্য।

2 Comments Add yours

  1. Morad says:

    মানুষ মরে গেলে পচে যায় বেচে থাকলে বদলায় কারণে অকারনে বদলায়। হায় রে প্রেম হায় রে ভালাবাস এর কি কোন প্রতিকার নেই? মোরাদ মেম্বার বরমী, শ্রীপুর, গাজীপুর।

    Like

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s