প্রতিক্রিয়াশীলতা কি একটা ভার্চু নাকি ভাইস?

গত কয়েকদিন ফেসবুক বন্ধ করে রাখছিলাম, কিছু মানুষের এক্সট্রা শো অফ দেইখা গা জ্বালা করত আগে, এখন সেইটারে খানিকটা ওভারকাম করতে পারছি মনে হয়। শুরুটা করছিলাম অন্য ভাবে। কে কি করতেছে, তাতে আমার কি? আমার কি কোন ক্ষতি হইতেছে? উত্তর যদি “না” হয়, তবুও কি সেইটা দেইখা আমার মেজাজ খারাপ হইতেছে? উত্তর যদি হ্যাঁ হয়, তাইলে আমি একজন প্রতিক্রিয়াশীল। এইটা আমার কাছে নেগেটিভ জিনিস একটা। কে কি করতেছে, তাতে আমার বাপের কি? যদি অন্যের ভাল দেইখা গা জ্বালা করে, তার মানে আমার মধ্যে প্রবলেম আছে, এই প্রবলেমরে হিংসা বলে। আমি একটা খাড়া হিংসুইট্টা। প্রতিক্রিয়াশীলতার নিম্নতম স্তর।

এনিওয়ে, উপরের ধরনের প্রতিক্রিয়াশীলতারে ওভারকাম করার চেষ্টা চালায়া যাইতেছি, চলতেছিল ভালই, আরেক ধরনের প্রতিক্রিয়াশীলতার খপ্পরে পড়লাম। এইটারে রেইজিং অ্যাওয়ারনেস টাইপ প্রতিক্রিয়াশীলতা বইলা জাস্টিফাই করার চেষ্টা চালাইতাম নিজেই নিজের মনের কাছে। ফর এক্সাম্পল, সুন্দরবনে একটা ট্যাংকার ডুইবা সাড়ে তিন লাখ লিটার তেল পইড়া ওই এলাকার ইকোসিস্টেমরে ুইদা খাল বানান হইতেছে, এই বিষয়ে টিভি চ্যানেল গুলার রিপোর্টিং ছয় বা সাত নম্বরে (ফেবু বন্ধ থাকায় গত কয়েক দিন ধইরা টুইটার, জাগোবিডি ডট কম আর নিউজ পেপার সাইটগুলাতে ঘুরঘুর করতেছিলাম আর কি), পেপারগুলাতে কমবেশি খবরগুলা আসছে, কিন্তু আন্তর্জাতিক মিডিয়াতে বালডাও আসে নাই। কালকে বিষ্যুদবার ছিল, বাংলাদেশের সাপ্তাহিক ঈদের দিন, তাই মজা দেখার জন্য আবার ঢুকছিলাম ফেবুতে, দেখলাম আন্তর্জাতিক মিডিয়ার সাথে তাল মিলায়া বাংলাদেশের ফেবু জনগোষ্ঠীরও এই বিষয়ে “ফিলিং মেহ্!” (সুন্দরবন চুইদা আমার কি? ডলফিন মরলে আমার কি?)! যা বলতে চাইতেছি, আমাদের জনগোষ্ঠী (যেহেতু আমি এই মুহূর্তে বিদেশী কাউয়া প্রজাতির অন্তর্ভূক্ত, তাই ফেবু জনগোষ্ঠীর মতামতরেই প্রচলিত অর্থে জনমত বইলা ধইরা নিতেছি) এই বিষয়ে আশ্চর্য রকমের প্রতিক্রিয়াহীন। আমার মনে হয় না কেউ এই খবরট এখনো শুনে নাই, কিন্তু দুই একজন ছাড়া সবাই চুপ! এই বিষয়ে প্রতিক্রিয়াশীলতা একটা ভাল জিনিস। কনকারেন্ট এক্সাম্পল দিলাম মাত্র একটা।

দুঃখের কিংবা সুখের ব্যাপার হইলো, প্রতিক্রিয়াশীলতা যেইরকমই হোক, আমাদের প্রতিক্রিয়াশীলতা ভার্চুয়াল জগতেই সীমাবদ্ধ। ধরলাম, পজিটিভভাবেই প্রতিক্রিয়াশীল হয়া গেল সবাই, এট বেস্ট যেইটা হইতারে, সেইটা হইলো সবাই “বাঁচাও সুন্দরবন” টাইপের কোন একটা ছবি প্রোফাইল পিকচার কিংবা কাভার ফটো দিবে, কিংবা কোন মানববন্ধনটাইপের ইভেন্টে গোইং বাটনে ক্লিক করবে।

উপরের প্যারাটা দিয়া ফিনিশিং দিতে চাইছিলাম, কিন্তু আরেকটা জিনিস মাথায় আসলো। আমি জানি আমার/আমাদের গোল্ডফিশ মেমোরি, খুব বড় ধরনের ইভেন্ট/ইস্যু না হইলে সবই ভুইলা যাই, তাই ফেসবুকে ওনলি মি দিয়া শেয়ার দিয়া রাখি অনেক কিছুই, যাতে পরবর্তীতে ওই জিনিসটা কোন সময়ে ঘটছিল, তার সম্পর্কে একটা হালকা ধারণা পাই। এখনো ফেসবুকে টাইমলাইনে সার্চ অপশন আসে নাই, কিন্তু আজ হোক কাল হোক এইটা আসবেই, ড্যাম শিওর। তার আগ পর্যন্ত ম্যানুয়ালি খুঁইজা বাইর করি, খারাপ লাগে না, লাইক এ ওয়াক ডাউন দা মেমোরি লেন! কিন্তু এইদিকে শেয়ার দিতে দিতে দিতে দিতে দিতে টাইমলাইন ভইরা যায়, মাগার শেয়ার করার মত জিনিস শেষ হয় না। একসময় ত্যাক্ত হয়া বাদ দিলাম, দ্বার বন্ধ করে আমি ভ্রমটারেই রুখে দিলাম। সত্য বাবাজীর কাছে মাপ চায়া। এইটাই ছিল ফেবু বন্ধ করার পিছে লজিক (ভাবখানা এমন যে পৃথিবীর মানুষ আমার ফেবু কেন বন্ধ এই চিন্তায় নাওয়া খাওয়া ছাইড়া দিছে! শাট আপ মেগ! নো বডি গিভস এ ফ্লাইং ফাক!)। তবে যেটা হইলো চিন্তা করার প্রচুর টাইম পাইলাম। সেই সাথে কিছু অলটারনেটিভ ইউজ অফ টাইমও হইলো আদার দ্যান ওয়াচিং পিপল।

গ্রেট মাইন্ডস ডিসকাস আইডিয়া

গ্রেট মাইন্ডস ডিসকাস আইডিয়া

কোথায় যেন পড়ছিলাম, গ্রেট মাইন্ডস ডিসকাস আইডিয়াস, অ্যাভারেজ মাইন্ডস ডিসকাস ইভেন্টস, স্মল মাইন্ডস ডিসকাস পিপল। আমরা ফেবুতে পিপল নিয়াই বেশি কনসার্নড, হোয়াট কাইন্ড অফ মাইন্ড দ্যাট মেক আস? আমি আপাতত একটু জাতে উঠার ট্রাই করতেছি, আপাতত ইভেন্ট নিয়া আছি (ফেবু ইভেন্ট না)!

আমাদের গোল্ডফিশ মেমোরি আসলেই? নাকি অতিরিক্ত ডাটা আমাদের সামনে আসে যে সেইগুলার ইনপুট নিতে নিতে আমাদের মাথার হার্ডডিস্ক ফিলআপ হয়া যায়, তখন কিছু ডাটা মুইছা ফেলতে হয়, নতুন ডাটা ভরার জন্য। অনেকটা ফার্স্ট ইন ফার্স্ট আউট কিউয়িং সিস্টেমের মত। এত দ্রুত আমাদের সামনে এত্ত এত্ত ঘটনা ঘটতে থাকে যে আমরা মাত্র সাত আট দিন আগেই যেই ইস্যু নিয়ে ব্যাপক প্রতিক্রিয়াশীল ছিলাম, সেই ইস্যুটাই ভুলে যাই। এই প্রসঙ্গে কবি সুকান্ত বহুত আগেই বলে গেছিলেন,

এসেছে নতুন শিশু, তাকে ছেড়ে দিতে হবে স্থান, …, তাই প্রাণপণে পৃথিবীর আমি সরাবো জঞ্জাল…

ভাল কথা আরেকটা জিনিস মনে হইলো, কালকে সম্ভবত, বীরশ্রেষ্ঠ রুহুল আমিনের শাহাদাত দিবস ছিল, কারও খেয়াল নাই, সবাই আপাতত প্রোফাইল পিকচারে বাংলাদেশের পতাকা নিয়ে বিজি আছে। জনৈক বড় ভাই বাংলাদেশের উপর বড়ই ক্ষ্যাপা! উনার সাথে একদিন ডিবেটের এক পর্যায়ে জিজ্ঞাসা করছিলেন, বাংলাদেশ কোন অ্যাচিভমেন্ট আছে, যেইটা নিয়া গর্ব করা যায় দুনিয়া জোড়া? সমুদ্রসৈকত কিংবা ভৌগলিক কিছু এই খানে প্রযোজ্য না, কারণ এইগুলা অ্যাচিভমেন্ট না, দিস থিংস অয়্যার জাস্ট দেয়ার! সেই সময় উনারে উত্তর দিতে পারি নাই কিছুই। আজকে আপাতত দুই-তিনটা জিনিস মাথায় আসতেছে,

১. পাটের জিনোম সিকোয়েন্স করছেন বিজ্ঞানী মাকসুদুল আলম (উনি প্রবাসী বইলা ক্যাঁচাল করার কোন সুযোগ নাই, কারণ পুরা প্রজেক্টটা হইছে বাংলাদেশে, উইকিপিডিয়া রেফারেন্স হিসেবে ব্যবহার করা যায় না, তবুও দিলাম, দেইখা আসতে পারেন ডাউট থাকলে)।

পাটের জিনোম

২. শিশু মৃত্যুর হার নিয়ারলি জিরোতে আনতে সক্ষম হইছে বাংলাদেশ। Hans Rosling Bangladesh Miracle লেইখা গুগলে সার্চ দিলেই দেখতে পারবেন এই বিষয়ে তার TED Talk, যাদের পুরাটা দেখার ধৈর্য নাই, তাদের জন্য পাঁচ মিনিটের একটা শর্টার ভার্সন দিলাম। এইটারে অ্যাচিভমেন্ট বলা যায় কিনা এই বিষয়ে অনেকেরই ডাউট থাকতে পারে, বাট আমার নাই, At least its something!

৩. মাইক্রোক্রেডিট কনসেপ্টটার সূতিকাগার বাংলাদেশ, কনসেপ্ট থেকে শুরু কইরা ইমপ্লিমেন্টেশন এবং আপরাইজিং পুরাটাই হইছে বাংলাদেশে। দেখাদেখি এখন বিভিন্ন দেশেও এইটার ইমপ্লিমেন্টেশন শুরু হইছে। (ইউনুস সাহেব সুদখোর নাকি সেই বিতর্ক করতে আইসেন না এইখানে, ইউ হিপোক্রেটস)। গুগলে সার্চ দেন, who invented microcredit, নিজেই দেইখা নেন।

who invented microcredit, Dr. Muhammad Yunus

৪. সোশ্যাল বিজনেস কনেসপ্টটাও আনসেন উপরের নিন্দিত সেই নোবলজয়ী ব্যক্তি (উনার নোবেল বিজয়কে উনার পার্সোনাল অ্যাচিভমেন্ট হিসেবেই ধরতেছি, আফটার অল নোবেল প্রাইজ হ্যাজ বিকাম এ জোক), জিনিসটার ইমপ্যাক্ট আর প্র্যাকটিস কতটুকু সেইটা এখনো জানি না, এই বিষয়ে পড়াশোনা কইরা হয়তো একদিন কিছু লেখা যাইতে পারে। আপাতত, গুগলে সার্চ মাইরা দেখতে পারেন, who invented social business, দেখেন কি আসে।

Who invented Social Busienss Dr. Muhammad Yunusবাই দা ওয়ে, who invented genome sequence of jute লেইখা সার্চ দিতে যাইয়েন না আবার।

আমি কথা বেশি বলি।😦

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s